বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে মৎস খামারী শাহিন খানের ২ হাত কেটে সম্পূর্ণ আলাদা করে ফেলে সন্ত্রাসীরা। এখন সন্ত্রাসীদের কেটে ফেলা ছেলের ২ হাত ব্যাগে নিয়ে বিচারের দাবিতে ঘুরছেন বাবা হাশেম খান।

গতকাল রবিবার, রাজবাড়ী জেলা সদরের আলিপুরের শাহিন খানকে (৩০) ফোন করে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে দুই কেটে সম্পূর্ণ আলাদা করে ফেলে সন্ত্রাসীরা। পরে, স্থানীয়রা শাহিনকে উদ্ধার করে রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। এরপর, ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। শাহিন বর্তমানে রাজধানীর পঙ্গু হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

আজ সোমবার সকালে, শাহিনের বাবা ও বড় ভাইকে জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয় ও সদর থানায় একটি ব্যাগে শাহিনের কাটা দুই হাত নিয়ে বিচারের দাবিতে ঘুরতে দেখা গেছে। পূর্ব বিরোধের জের ধরেই নৃশংস এ হামলা চালানো হয়েছে বলে দাবি শাহিনের পরিবারের।

এ ঘটনার প্রধান অভিযুক্ত ইসমাইল ও শাহীনের বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসা করার অভিযোগ রয়েছে। তাদের দু’জনের বিরুদ্ধে রাজবাড়ী সদর থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলাও রয়েছে। এ বিষয়ে, পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে প্রধান অভিযুক্ত ইসমাইলের সহযোগী শাহীন নামে এক যুবককে আটক করা হয়েছে।

ঘটনার তদন্ত ও দোষীদের ধরতে অভিযান চলছে বলেও পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়।